নজরের হেফাজত

By | Mon 21 Safar 1438AH || 21-Nov-2016AD

সূনান আবু দাউদ (ইফাঃ) ২১৪৫ || মুহাম্মদ ইবন কাসীর ………… জাবীর (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, একদা আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে হঠাৎ কোন অপরিচিত স্ত্রীলোকের প্রতি দৃষ্টিপাত করা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করি। তিনি বলেন, তুমি তোমার দৃষ্টিকে (তৎক্ষণাৎ) ফিরিয়ে নিবে। – সূনান তিরমিজী ২৭৭৬, মুসলিম

সূনান আবু দাউদ (ইফাঃ) ২১৪৬ || ইসমাঈল ইবন মতহসা আল ফাযারী ……….. আবূ বুরায়দা (রহঃ) তাঁর পিতা হতে বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আলী (রাঃ) কে বলেন, হে আলী! তোমার প্রথম দৃষ্টিপাতকে (বেগানা স্ত্রীলোকের প্রতি অনিচ্ছা সত্বে হয়েছে) তোমার দ্বিতীয় দৃষ্টি (যা ইচ্ছাকৃত) যেন অনুসরণ না করে। কেননা, প্রথমবার দৃষ্টিপাত তোমার জন্য জায়িয, আর দ্বিতীয়বার (ইচ্ছাকৃতভাবে) দৃষ্টিপাত করা তেমার জন্য বৈধ নয়। – সূনান তিরমিজী (ইফাঃ) ২৭৭৭

সূনান তিরমিজী (ইফাঃ) ২৭৭৮ || সুওয়ায়দ (রহঃ) ………. উম্মু সালামা (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর নিকট তিনি এবং মায়মূনা (রাঃ) বসা ছিলেনঃ উম্মু সালামা (রাঃ) বলেনঃ আমরা তাঁর কাছে ছিলাম এমন সময় ইবন উম্মে মাকতূম আগমন করলেন এবং তাঁর কাছে এসে ঢুকলেন। এ ঘটনাটি ছিল আমাদের প্রতি পর্দার নির্দেশ নাযিল হওয়ার পরের। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ তোমরা তার থেকে পর্দা কর। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলুল্লাহ্ ! ইনি কি অন্ধ নন? তিনি তো আমাদের দেখতে পাচ্ছেন না এবং আমাদের চিনতে পারছেন না। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ তোমরা দু’জন কি অন্ধ হয়ে গেছ? তোমরা কি তাকে দেখছ না? মিশকাত ৩১১৬

সূনান তিরমিজী (ইফাঃ) ২৭৮০ || মুহাম্মাদ ইবন আবদুল আলা সানআনী (রহঃ) …….. উসামা ইবন যায়দ ও সাঈদ ইবন যায়দ ইবন আমর ইবন নুফায়ল (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: আমি আমার পর লোকদের মাঝে পুরুষদের জন্য মেয়েদের চেয়েও ক্ষতিকর আর কোন ফিতনা ছেড়ে যাচ্ছি না। বুখারি, মুসলিম।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

2 thoughts on “নজরের হেফাজত

  1. জহিৰুল হাচান আনচাৰী

    কোন বাল্টিতে নাপাক কাপঢ় ডিটাৰজেন্ট পাউদাৰ দিয়ে ভিজাইয়া ৰাখাৰ পৰ ,বাল্টিৰ পানীগুলো ফেলে দিয়া ,আবার again বাল্টিতে যে পানী লোৱা হবে এই পানীগুলো কি পাক হবে।

    Reply
    1. Jalal Uddin Post author

      আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। বাকি আমাদের এই সাইটটি কোনো অনলাইন মাসালা দেয়ার সাইট নয় বলে সবচেয়ে উত্তম হবে আপনার প্রশ্নের উত্তরটি কোনো ভালো ও বিজ্ঞ দারুল ইফতার সাথে যোগাযোগ করে জেনে নিলে। আপনি চাইলে মাসিক আল-কাউসার এর ফতোয়া বিভাগে যোগাযোগ করতে পারেন যার ফোন নাম্বার সহ অন্যান্য তথ্য নিচের লিংক এ গেলে পাওয়া যাবে।
      https://www.alkawsar.com/bn/about/contact-us/
      আল্লাহ আমাদের সবাইকে সঠিক ও উপকারী ইলম সঠিক ভাবে জানার ও মানার ব্যবস্থা করে দেন।

      Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*