জুম্মার দিনের মর্যদা

By | Fri 19 Rabi Al Thani 1437AH || 29-Jan-2016AD

সূনান নাসাঈ – ১৩৭৩ (ইফা:)। সুওয়ায়দ ইবনু নাসর (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, যে দিন সমূহে সূর্য উদিত হয় তন্মধ্যে সর্বোত্তম দিন হল জুম্মার দিন। সে দিন আদম (আলাইহি ওয়াসাল্লাম)-কে সৃষ্টি করা হয়েছিল এবং সে দিনই তাঁকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়েছিল এবং সে দিনই তাঁকে জান্নাত থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল।

সূনান নাসাঈ – ১৩৭৪ (ইফা:)। ইসহাক ইবনু মানসূর (রহঃ) আওস ইবনু আওস (রাঃ) সুত্রে নবী ﷺ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, তোমাদের সকল দিনের মধ্যে পরমোৎকৃষ্ট দিন হল জুম্মার দিন,

  • সে দিন আদম (আলাইহি ওয়াসাল্লাম)-কে সৃষ্টি করা হয়েছিল,
  • সে দিনই তাঁর ওফাত হয়,
  • সে দিনই দ্বিতীয় বার শিঙ্গায় ফু দেওয়া হবে এবং
  • সে দিনই কিয়ামত অনুষ্ঠিত হবে।

অতএব, তোমরা আমার উপর বেশি বেশি দরুদ পড়। কেননা, তোমাদের দরুদ আমার কাছে পেশ করা হয়। তারা বললেন, ইয়া রাসুলুল্লাহ! কিভাবে আমাদের দরুদ আপনার কাছে পেশ করা হবে? যেহেতু আপনি (এক সময়) ওফাত পেয়ে যাবেন অর্থাৎ তারা বললেন, আপনার দেহ মাটির সাথে মিশে যাবে। তিনি বললেন, নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলা যমীনের জন্য নবীগণের দেহ গ্রাস করা হারাম করে দিয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*