কোরবানী বিষয়ক হাদিস

By | Mon 26 Dhul Qidah 1437AH || 29-Aug-2016AD

হাদীস ০১। উম্মু সালামা রাদিয়াল্লাহু আনহ থেকে বর্ণিত,

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি কুরবানী করার ইচ্ছা রাখে যিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখার পর সে যেন তার চুল ও নখ না কাটে কুরবানী করা পর্যন্ত।

তিরমিযী শরিফ (ইফা) ১৫২৯ :: সহীহ মুসলিম ১৯৭৭/৩৯-৪২ :: সুনানে আবু দাউদ ২৭৯১ :: সুনানে নাসায়ী ৪৩৬২-৪৩৬৪ :: সহীহ ইবনে হিববান ৫৮৯৭, ৫৯১৬, ৫৯১৭


হাদীস ০২।আবদুল্লাহ্ ইবন ‘আমর ইবন ‘আস (রাঃ) থেকে বর্ণিত।

নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেনঃ “আমাকে ‘ইয়াওমুল আযহার’ আদেশ করা হয়েছে। (অর্থাৎ এ দিবসে কুরবানী করার আদেশ করা হয়েছে।) যাকে আল্লাহ তায়ালা এই উম্মতের জন্য (ঈদ হিসাবে) নির্ধারণ করেছেন।”

তখন এক ব্যক্তি জিজ্ঞাসা করেঃ [ইয়া রাসুলাল্লাহ]! আপনি বলুন, (যদি আমার কুরবানির পশু ক্রয়ের সামর্থ না থাকে), কিন্তু আমার কাছে এমন উষ্ট্রী বা বকরী থাকে যার দুধ পান করার জন্য বা মাল বহন করার জন্য তা প্রতিপালন করি। আমি কি তাকে কুরবানি করতে পারি?

তিনি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেনঃ না, বরং তুমি সেদিন তোমার মাথার চুল কাটবে (মুন্ডাবে বা ছোট করবে) নখ কাটবে, মোচ কাটবে এবং নাভির নিচের চুল পরিষ্কার করবে। এ-ই আল্লাহর নিকট তোমার কুরবানী।

সুনানে আবু দাউদ (ইফা) ২৭৮০ :: মুসনাদে আহমদ ২/১৬৯  (৬৫৭৫) :: সহীহ ইবনে হিববান (৭৭৩, ৫৯১৪) ::সুনানে নাসায়ী (৪৩৬৫)


হাদীস ০৩। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত,

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম   বলেন, ‘যে সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও কুরবানী করল না (অর্থাৎ তার কুরবানী করার সংকল্প নেই) সে যেন আমাদের ঈদগাহের নিকটেও না আসে।’

মুসনাদে আহমদ ২/৩২১ ::মুস্তাদরাকে হাকেম ৪/২৩১  (৭৬৩৯)


হাদীস ০৪। আলী ইবনে আবী তালিব রা. বলেন,

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাকে তাঁর (কুরবানীর উটের) আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করতে বলেছিলেন। তিনি কুরবানীর পশুর গোশত, চামড়া ও আচ্ছাদনের কাপড় ছদকা করতে আদেশ করেন এবং এর কোনো অংশ কসাইকে দিতে নিষেধ করেন।  তিনি বলেছেন, আমরা তাকে (তার পারিশ্রমিক) নিজের পক্ষ থেকে দিব

সহীহ বুখারী , সহীহ মুসলিম

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*