Category Archives: নির্বাচিত হাদীস

দাজ্জাল ও ঈমাম মাহ্দী

হাদিস ০১। মুআয ইব্‌ন জাবাল (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ বায়তুল মুকাদ্দিসের প্রতিষ্ঠা মদীনার অমঙ্গলের কারণ হবে। আর মদীনার খারাবী ফিতনা সৃষ্টির কারণ হবে। বস্তুত ফিতনা-ফ্যাসাদ সৃষ্টি কুস্‌তুন্‌তুনিয়া বিজয়ের কারণ হবে এবং কুস্‌তুনতুনিয়ার বিজয়-দাজ্জাল বের হওয়ার কারণ হবে। এরপর রাসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁর হাত মুআয (রাঃ)-এর কাঁধে বা হাঁটুতে মেরে… Read More »

শা’বান মাসে বেশি করে নফল রোযা সংক্রান্ত হাদিস

হাদিস  ১: আয়িশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূল ﷺ কে রমযান ব্যতীত কোন পুরা মাসের রোযা পালন করতে দেখিনি এবং শা’বান মাসের চেয়ে কোন মাসে বেশী (নফল) রোযা পালন করতে দেখিনি। – সহিহ বুখারী (ইফা) :: হাদিস নং ১৮৪৫ হাদিস  ২: ‘আয়িশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত , তিনি বলেন, নবী ﷺ শা‘বান মাসের চেয়ে বেশী (নাফল) রোযা… Read More »

মধু ও কালো জিরা দ্বারা চিকিৎসা

বুখারী শরীফঃ ৫২৭৯ মুহাম্মদ ইবনু আবদুর রাহীম (রহঃ)ইবনু আব্বাস (রাঃ) এর সুত্রে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রোগমুক্তি তিনটি জিনিসের মধ্যে নিহিত। শিঙ্গা লাগানোতে, মধু পানে এবং আগুন দিয়ে গরম দাগ দেওয়ার মধ্যে। তবে আমি আমার উম্মতকে আগুন দিয়ে গরম দাগ দিতে নিষেধ করি। ৫২৮৬ ইয়াহইয়া ইবনু বুকায়র (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত।… Read More »

রক্ত মোক্ষন/ শিংগা/ হিজামা বিষয়ক হাদীস

বুখারী শরীফঃ ৫২৭৯ মুহাম্মদ ইবনু আবদুর রাহীম (রহঃ)ইবনু আব্বাস (রাঃ) এর সুত্রে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রোগমুক্তি তিনটি জিনিসের মধ্যে নিহিত। শিঙ্গা লাগানোতে, মধু পানে এবং আগুন দিয়ে গরম দাগ দেওয়ার মধ্যে। তবে আমি আমার উম্মতকে আগুন দিয়ে গরম দাগ দিতে নিষেধ করি। ৫২৯২ মূসা’দ্দাদ (রহঃ) ইবনু আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত।… Read More »

মিথ্যা অপবাদের ভয়াবহতা

হাদিস ১। হযরত মুয়াজ ইবনে জাবাল (রাযি:) বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করিয়াছেন, যে ব্যক্তি আপন (মুসলমান) ভাইকে কোন এমন গুনাহের উপর লজ্জা দিল, যে গুনাহ হইতে সে তওবা করিয়া ফেলিয়াছে, তবে এই লজ্জাদাতা ততক্ষন পর্যন্ত মরিবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত সে নিজে ঐ গুনাহের মধ্যে লিপ্ত না হইবে। – তিরমিযী, মুন্তাখাব হাদীস… Read More »

শাওয়াল মাসে ছয় দিন রোযা রাখার ফযীলত

হাদীস ০১। আবূ আইয়ুব আনসারী (রাঃ) বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: যে ব্যাক্তি রমযান মাসের রোযা রেখেছে এবং তার সাথে শাওয়াল মাসেও ছ’টি রোযা রেখেছে – এটা তার জন্য সারা বছর রোযা রাখার সমান হবে। – সহীহ মুসলিম (ইফা:) ২৬২৪, তিরমিযী (ইফা:) ৭৫৭  

ধোঁকার দুনিয়া, দুনিয়া বিমুখতা ও দুনিয়ার মূল্যহীনতা

আয়াত ১। وَ فَرِحُوْا بِالْحَیٰوةِ الدُّنْیَا وَ مَا الْحَیٰوةُ الدُّنْیَا فِی الْاٰخِرَةِ اِلَّا مَتَاعٌ কিন্তু এরা পার্থিব জীবনে উল্লসিত, অথচ দুনিয়ার জীবন আখেরাতের তুলনায় ক্ষণস্থায়ী ভোগমাত্র। -সূরা রা‘দ (১৩) : ২৬

গীবত

ওহে যারা ঈমান এনেছ! অধিকাংশ ক্ষেত্রে সন্দেহ এড়িয়ে চল,কেননা কোনো কোনো সন্দেহ নিশ্চয়ই পাপজনক। আর তোমরা গুপ্তচরবৃত্তি করো না,আর তোমাদের কেউ-কেউ অন্যদের আড়ালে নিন্দা করো না। তোমাদের কেউ কি চায় যে সে তার মৃত ভাইয়ের মাংস খাবে? নিশ্চিত তোমরা এটি ঘৃণা কর। আর আল্লাহ্‌কে ভয়-ভক্তি করো। নিঃসন্দেহ আল্লাহ্ বারবার প্রত্যাবর্তনকারী,অফুরন্ত ফলদাতা। [৪৯:১২] সহীহ মুসলিম :… Read More »

সূরা ওয়াক্বিয়ার ফযীলত

হাদীস (ঘটনা) ১।  হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসঊদ (রা) যখন অন্তিম রোগশয্যায় শায়িত ছিলেন, তখন আমিরুল মুমিনীন হযরত উসমান (রা) তাঁকে দেখতে যান। তখন তাদের মধ্যে শিক্ষাপ্রদ কথোপকথন হয়, তা নিম্নে উদ্ধৃত করা হলো: হযরত উসমান: আপনার অসুখটা কি? হযরত ইবনে মাসঊদ (রা): আমার পাপসমূহই আমার অসুখ। হযরত উসমান: আপনার বাসনা কি? হযরত ইবনে মাসঊদ (রা):… Read More »

সূরা মূলকের ফযীলত

এই সুরাকে হাদীসে ওয়াকিয়া ও মুনজিয়া বলা হয়েছে। ওয়াকিয়া শব্দের অর্থ রক্ষাকারী এবং মুনজিয়া অর্থ মুক্তিদানকারী। হাদীস ১। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, “এই সূরা আযাব রোধ করে এবং আযাব থেকে মুক্তি দেয়। যে এই সূরা পাঠ করে, তাকে এ সূরা কবরের আযাব থেকে রক্ষা করবে।” – কুরতুবীর বরাতে মারেফুল কোরানে বর্ণিত