আজওয়া খেজুরের বৈশিষ্ঠ্য

By | Wed 24 Rabi Al Thani 1437AH || 3-Feb-2016AD

মুসলিম শরীফ ৫১৭৮ (ইফা:)। সা’দ (রাঃ) বলেনঃ আমি রাসুলুল্লাহ ﷺ – কে বলতে শুনেছি, যে ব্যক্তি সকাল বেলা সাতটি “আজওয়া খেজুর” (মদিনা শরীফে উৎপন্ন এক জাতীয় উৎকৃষ্ট মানের খেজুর) খেয়ে নেবে,  সেদিন কোন বিষ বা যাদু-টোনা তার কোনো ক্ষতি করতে পারবেনা।      (হাদীসটি বুখারী শরীফের ৫৩৫৭ :ইফা অনুবাদকৃত: নং হাদীস হিসাবেও এসেছে)


মুসলিম শরীফ ৫১৮০ (ইফা:)। আয়িশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ ﷺ বলেনঃ আলিয়ার (মদিনার পূর্বদিকে কয়েক মাইল দুরে অবস্থিত কতিপয় গ্রাম) আজওয়া খেজুর রোগ নিরাময়কারী এবং প্রাতকালীন প্রতিষেধক।


তিরমিজি শরীফ ২০৭২ (ইফা:)। আবূ উবায়দা ইবন আবূ সাফার ও মাহমূদ ইবন গায়লান (রহঃ) …. আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আজওয়া হলো জান্নাতী খেজুর। এতে আছে বিষের প্রতিষেধক, মাসরুম হলো মান্‌নের অন্তর্ভুক্ত। এর পানি হলো চক্ষু রোগের প্রতিষেধক।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*